Templates by BIGtheme NET
ব্রেকিং নিউজ

তারেক পার্কে -রাজপথে নেই কেও

শেখ আসলাম/জননেতাঃ 

15046369_1849712791979504_705904349_n

বিএনপি মানেই মা আর পুত্র। এমনটাই সেদিন বলছিলেন শিক্ষাবিদ প্রফেসর ডক্টর শাহেদা। তিনি তো এমনিতেই অপ্রিয় সত্য কথা সরাসরি বলে ফেলেন। সম্প্রতি গণমাধ্যমকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে তিনি এমন করেই বললেন। এতে করে বিএনপির নেতাকর্মীরা কষ্ট পায় তা তিনি কি বোঝার চেষ্টা করেন? কিন্তু একেবারে যে মিথ্যে বলেছেন তাও কি করে বলা যায় ! দেশের অনলাইন মাধ্যম জাগোনিউজ২৪ সম্প্রতি প্রতিবেদন করে জানান দিলো, মা ও পুত্রের জন্য হচ্ছে না যুবদলের কমিটি ! আজকাল এভাবে সংবাদ হতে থাকলে বিএনপির মধ্যকার সত্যিকারের দলীয় গণতন্ত্র যে আসলে হুমকির মুখে আছে তা হয়তো একটু আধটু করে সংস্কৃতির চর্চা হচ্ছে বৈকি !

এদিকে শুক্রবার বেগম খালেদা জিয়া একটি সংবাদ সম্মেলনের ডাক দিয়েছেন। বিএনপি দলীয় চেয়ারপার্সন এর  আহুত এই সংবাদ সম্মেলন কে গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করার সুযোগ রয়েছে। যদিও হালে তিনি যাই করছেন মুখ থুবড়ে পড়ছে। মাঝে রেখেছিলেন ঐক্যের ডাক। কিন্তু তা আর এগুতে পারে নাই।  অভিজাত একটি পাঁচ তারকা হোটেলে অনুষ্ঠিতব্য এই সম্মেলনে তিনি নির্বাচন কমিশন গঠন কি ভাবে করা যেতে পারে তার একটি রূপরেখা দিবেন। তাহলে ধরেই নেয়া হচ্ছে বিএনপি মনে করছে, আগামী বছর একটা অগ্রিম নির্বাচন সরকার দল করে ফেলতে পারে। সেই নির্বাচনে বিএনপি অংশ নেয়ার ব্যাপারে সিরিয়াস বলেই হয়তো এই সংবাদ সম্মেলন ! এমন বিষয়কে সামনে রেখে চলছে চুলচেরা বিশ্লেষণ। যদিও গণমাধ্যমে এসেছে বিএনপির শরীকদলগুলোকে সঙ্গে নিয়ে এই সুপারিশ দেয়া হচ্ছে না। সঙ্গত কারণেই ২০ দলের জোটের শরীক দলগুলো খানিকটা নাখোশ।

অপর  এক সূত্রমতে  শরীক দলগুলোর ভাষ্য হলো, “এই সংবাদ সম্মেলন ও বেগম জিয়ার প্রস্তাব কিংবা সুপারিশে আমাদের রাখার দরকার ছিল। কারণ হিসাবে ২০ দলীয় জোটের এক শীর্ষ নেতা জননেতাকে বলেন, আমাদের মধ্যকার জোট হয়েই ছিল এই মর্মে যে, নির্দলীয় তত্বাবধায়ক সরকারের অধিনে নির্বাচন হতে হবে। কাজেই এই সম্যক যাই বিএনপি করতে চায় তা আমাদেরকে নিয়ে করলে বিষয়টা গুরুত্ব পেত আরো বেশী।”

অন্যদিকে বিএনপির এই আলাদা কার্যক্রমে ভুমিকা রেখেছেন যথারীতি দলের ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান তা বিএনপির অপর একটি সূত্র হতে জানা গেছে। তিনি চাইছেন, বিএনপি নিজের ইমেজ কে পুনরুদ্ধার করুক। যদিও তাঁকে লন্ডনে ইদানিং খুব হালকা মেজাজেই দেখতে পাওয়া যাচ্ছে। পার্কে  ঝোলা ই- ব্যাগ নিয়ে তাঁকে বসে থাকতে দেখা গেছে।

অপরদিকে বিএনপির অস্তিত্ব ও ৭ নভেম্বর ইস্যুতে দলটির সমাবেশ না করতে পারার ক্ষমতা দলের তৃণমূল নেতাকর্মীদের কষ্ট দিয়েছে। তাঁদের বক্তব্য, “সরকারের চাইতেও বড় সরকার এখন দলের মধ্যে। তাঁরা আসলে মুখে বড় বড় কথা বলে, কাজের সময় কেও নেই। আমাদের তো ওইদিন থাকার কথা ছিল রাস্তায় কিন্তু কর্মসূচী বলে পুলিশের জন্য হয় না! রাজনীতি তাহলে এখন পুলিশের কাছে বন্ধক দিয়েছি আমরা ।”

শে/৭১৭/জ